২০২৩ সালে ব্যাংকের মাধ্যমে দেশে মোট ২ হাজার ১শ ৯০ কোটি ডলার প্রবাসী আয় এসেছে।গতবছরের জুলাই থেকে এ বছরের মার্চ পর্যন্ত নয় মাসে দেশে সবচেয়ে বেশি প্রবাসী আয় এসেছে ঢাকায়।বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসেব অনুযায়ী, ২০২৩ সালে ব্যাংকের মাধ্যমে দেশে মোট ২ হাজার ১শ ৯০ কোটি ডলার প্রবাসী আয় এসেছে।

গতবছরের জুলাই থেকে এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত আট মাসে দেশে প্রায় ১ হাজার ৫শ ৭ কোটি ডলার প্রবাসী আয় এসেছে। মার্চের প্রথম ২ দিনে এসেছে ১৪১ কোটি ডলার। এপ্রিলের ১ থেকে ১২ তারিখের মধ্যে এসেছে প্রায় ৮৮ কোটি ডলার।

গতবছরের জুলাই থেকে এ বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আট মাসে সর্বোচ্চ ৫২৪ কোটি ডলার প্রবাসী আয় এসেছে রাজধানী ঢাকায়। তারপর এসেছে চট্টগ্রামে (১৪৩ কোটি ডলার), সিলেটে (৮৭ কোটি ডলার), কুমিল্লায় (৮১ কোটি ডলার), নোয়াখালীতে (৪৭ কোটি ডলার), ব্রাক্ষনবাড়িয়ায় (সাড়ে ৩৮ কোটি ডলার), ফেনীতে (৩৮ কোটি ডলার), মৌলভিবাজারে (প্রায় ৩৬ কোটি ডলার), চাঁদপুরে (প্রায় সাড়ে ৩৫ কোটি ডলার) ও টাঙ্গাইলে (প্রায় সাড়ে ২৫ কোটি ডলার)।

গতবছরের জুলাই থেকে এ বছরের মার্চ পর্যন্ত নয় মাসে দেশে সবচেয়ে বেশি প্রবাসী আয় এসেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে (৩৫ হাজার ৮শ ৯০ কোটি টাকা)। প্রবাসী আয় আসা শীর্ষ দশটি দেশের মধ্যপ্রাচ্যের আরো ৫টি দেশ রয়েছে। সৌদি আরব থেকে এসেছে ২১ হাজার ৫শ ৭৭ কোটি টাকা, কুয়েত থেকে ১২ হাজার ৮৪ কোটি টাকা, কাতার থেকে ৯ হাজার ১শ ৯৭ কোটি টাকা, ওমান থেকে ৭ হাজার ৬শ ৪৯ কোটি টাকা ও বাহরাইন থেকে ৪ হাজার ৮শ ৫১ কোটি টাকা।

প্রবাসী আয় পাঠানোতে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাজ্য। গত বছরের জুলাই থেকে এ বছরের মার্চ পর্যন্ত নয় মাসে দেশে মোট ২৩ হাজার ৫৩১ কোটি টাকার প্রবাসী আয় এসেছে যুক্তরাজ্য থেকে। এছাড়া নয় মাসে যুক্তরাষ্ট্র থেকে মোট প্রবাসী আয় এসেছে ২১ হাজার ৩শ ২৫ কোটি টাকা।

অন্যান্য দেশের মধ্যে মালয়েশিয়া থেকে প্রবাসী আয় এসেছে ১১ হাজার ৯শ ৭৪ কোটি টাকা, কানাডা থেকে ১ হাজার ৫৩ কোটি টাকা এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে ৮৮৯ কোটি টাকা।

জীবন নিয়ে উক্তি