কুয়েতের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার রাতে আশানুরূপ খেলতে পারেননি সাহাল আব্দুল সামাদ এবং অনিরুদ্ধ থাপা ৷ ম্যাচ শেষে এমনই মন্তব্য করলেন কোচ ইগর স্টিম্যাচ ৷ সেই সঙ্গে ১১ জুনের কাতার ম্যাচ নিয়ে পরিকল্পনা শুরু করে দিলেন তিনি ৷

বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জনের পরের রাউন্ডে ওঠার আশা এখনও রয়েছে ভারতের ৷ তাই তৃতীয় রাউন্ডে পৌঁছনোর জন্য ১১ জুনের কাতার ম্যাচে মরিয়া লড়াইয়ের বার্তা কোচ ইগর স্টিম্যাচের ৷ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে গোলশূন্য ড্রয়ের পরেও, ভারত বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জনের দৌড়ে টিকে আছে ৷ তবে, পরের রাউন্ডে পৌঁছনোর অংকে অনেক ‘যদি’, ‘কিন্তু’ থেকে যাচ্ছে ৷ গুরপ্রীত সিংকে পাশে নিয়ে ইগর স্টিম্যাচ জানিয়েছেন, কুয়েত ম্যাচ ড্র করে তাঁরা দুঃখিত ৷ তবে, এখনও সুযোগ শেষ হয়ে যায়নি ৷

আজ ভারতীয় দলের রিকভারি সেশন রয়েছে ৷ আগামিকাল 8 জুন কুয়েত রওনা দেবে ভারতীয় ফুটবল দল ৷ স্টিম্যাচ বলেন, “আমাদের মাঝের কয়েকদিনে সবকিছু গুছিয়ে নিতে হবে ৷ বিশ্বাস গড়ে তুলতে হবে দলের মধ্যে, যে কাতারের ম্যাচটি আরও একটি ম্যাচ ৷ যাদের বিরুদ্ধে আমরা চ্যালেঞ্জ নিতে পারি ৷ ছোট্ট আশা রয়েছে ৷ আমাদের বিশ্বাস গড়ে তুলতে হবে নিজেদের মধ্যে ৷”

১১ জুন কাতারের বিরুদ্ধে ম্যাচ শুধু জিতলেই হবে না ৷ কুয়েত বনাম আফগানিস্তান ম্যাচের ফলাফলের উপরেও অনেক কিছু নির্ভর করবে ৷ তবে, জয় তুলে নিতে পারলে অ্যাডভান্টেজ ভারত ৷ স্টিম্যাচ কুয়েত ম্যাচের শেষে সাহাল আব্দুল সামাদ এবং অনিরুদ্ধ থাপার সমালোচনা করেছেন ৷ তিনি বলেন, “আপনি ম্যাচ জিততে ব্যর্থ হয়েছেন ৷ ফলাফলে অখুশি, তখন কী করে বলবেন কয়েকজন ফুটবলারের পারফরম্যান্সে খুশি ! সাহাল মাঠে প্রচুর দৌড়েছে ৷ ওর রক্ষণাত্মক ফুটবলের গুণও নজরকাড়া ৷ তবে, সাহালকে আমি প্লে-মেকার হিসেবে চেয়েছিলাম ৷ সে ম্যাচের নিয়ন্ত্রক হবে, গোলের সুযোগ তৈরি করবে এবং রক্ষণে সাহায্য করবে ৷”

অনিরুদ্ধ থাপা সম্পর্কেও সমালোচনা শোনা গেল ভারতীয় দলের কোচের মুখে ৷ এই ধরনের পরিস্থিতিতে দলের প্রয়োজনের কথা জেনেও, অনিরুদ্ধ থাপা তা পূরণে ব্যর্থ বলে মনে করেন স্টিম্যাচ ৷ অন্যদিকে, ভারতীয় দলের জার্সিতে শেষ ম্যাচ খেলার পরে সাংবাদিকদের খোলা চিঠি দিলেন সুনীল ছেত্রী ৷

সদ্য অবসরে যাওয়া ভারত অধিনায়ক লিখেছেন, “… গত ১৯ বছরে বহুবার আমি আপনাদের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পেয়েছি ৷ অনেক সময় মথা উজার করে দিতে পারিনি আপনাদের সামনে ৷ আবার কখনও কখনও দীর্ঘায়িত হয়ছে আমার জবাব ৷ আবার আমার উত্তর আপনাদের পছন্দ হয়নি, এমন ঘটনাও বিরল নয় ৷৷”

সংবাদ মাধ্যকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি লেখেন, “আজকের দিনে এই চিঠির মাধ্যমে আমি আপনাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই, আমার গল্পটা সকলের সামনে তুলে ধরার কাজে সাহায্য করার জন্য ৷ ধন্যবাদ জানাতে চাই, আপনাদের লেখা ও ছবির মাধ্যমে আমাকে ভালোবাসা জানানোর জন্য ৷ সর্বোপরি ধন্যবাদ জানাতে চাই, আমার খেলার পর্যালোচনার ক্ষেত্রে সৎ থাকার জন্য ৷”

সুনীল বলেন, “আপনাদের কাজটা কঠিন, গুরুত্বপূর্ণও ৷ আর সেই কাজটাকে স্বীকৃতি জানানোর জন্য এটাই সেরা সময় ৷ আপনারা এভাবেই ভারতীয় ফুটবলের গল্পগুলো সবার সামনে তুলে ধরার কাজটা চালিয়ে যান ৷ ভালো গল্প, খারাপ গল্প ৷ সঙ্গে বেশি করে তুলে ধরুণ আশা আর প্রতিশ্রুতিতে মোড়া গল্পগুলি ৷ এখন আরও বেশি করে সেটা আমাদের দরকার ৷ স্টেডিয়ামে আপনারাই সবচেয়ে ভালো আসনটায় বসেন ৷ আশা করছি, গত 19 বছরে আপনাদের অভিজ্ঞতাকে স্পেশাল করতে পেরেছি ৷ হয়তো কোনও একটা-দু’টো ম্যাচে আমিও হাজির হব আপনাদের ডাগআউটে…। ইতি, সুনীল ছেত্রী ৷”

জীবন নিয়ে উক্তি