সমুদ্রের বিশালত্বে হারিয়ে গিয়ে নিজেকে চাঙা করে তুলতে কে না পছন্দ করে? তাই সমুদ্রভ্রমণকে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য বিশ্বজুড়ে পর্যটন ব্যবসার সাথে জড়িত সংস্থাগুলোর প্রচেষ্টার কোনো কমতি নেই। সেই প্রচেষ্টার একটি অংশ হচ্ছে বিলাসবহুল ‘ক্রুজ শিপ’ বা প্রমোদতরী।

যা আপনি আপনার পরিবারের সাথে উপভোগ করতে পারেন। অন্য অনেক ধরনের যাত্রার মতোই এ ভ্রমণ। তবে এই বিলাসবহুল জাহাজে চড়লে সব যাত্রীদের মতো আপনাকেও কিছু নিয়ম মানতে হবে।

বিলাসবহুল জাহাজে ভ্রমণের সুযোগ অনেক মানুষের জীবনে একবারই আসে। এই সময়ে বিলাসবহুল জাহাজ ভ্রমণ সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটন ব্যবস্থার একটি এবং এই ধরনের বিশাল জাহাজে ভ্রমণের সুযোগের জন্য রীতিমত অপেক্ষায় থাকেন পর্যটকেরা।

বর্তমানে অনেক ধরনেরই বিলাস বহুল জাহাজ রয়েছে। এইসব প্রমোদতরীতে করে আপনি যেতে পারেন ক্যারাবিয়ান, আলাস্কা বা ভূমধ্যসাগরে। প্রচুর প্রমোদতরী, জাহাজ বা বৈচিত্রময় ভ্রমণ আছে যা আপনি আপনার পরিবারের সাথে উপভোগ করতে পারেন। অন্য অনেক ধরনের যাত্রার মত এই ভ্রমণেও যাত্রীদের কিছু নিয়ম মানতে হয়।

দেখে নিন কী কী নিয়ম আপনাকে মানতে হবে-

আপনার পাসপোর্ট অবশ্যই বহন করতে হবে

দেশের বাইরে বিলাসবহুল জাহাজে যেকোন যাত্রার জন্য আপনার পাসপোর্ট জরুরি। পাসপোর্ট ছাড়া আপনি যে কোনো সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন না। যদি পাসপোর্ট না থাকে সেক্ষেত্রে আপনি হয়তোবা এই প্রমোদতরীতে ভ্রমণের সুযোগই পাবেন না।

নির্দিষ্ট সময় মেনে চলা

জাহাজে উঠার সময় অপরিবর্তনীয়। এটা প্রাথমিক এবং গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম। প্রমোদতরীর সময়তালিকা থাকে এবং কোন যাত্রী দেরি করলেও তা অপরিবর্তনীয়ই থাকে।

উড়ন্ত ড্রোন নিষিদ্ধ

একুশ শতকে এসে যেখানে ক্যামেরা বা ড্রোন খুবই স্বাভাবিক বিষয়। প্রতিটি মানুষ তাদের এই অভিজ্ঞতার ছবি বা ভিডিও তৈরি করতে ইচ্ছুক কিন্তু যদি বিলাশবহুল ভ্রমণে ড্রোন ওড়ানোতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। জাহাজের বাইরে এটি ব্যবহার করতে পারলেও ভেতরে অবস্থানকালে তা নিষিদ্ধ।

হোভারবোর্ডে আরোহণ নিষিদ্ধ

অনেকে ছুটি কাটাতে হোভারবোর্ড সঙ্গে করে জাহাজে নিতে চান, কিন্তু এটি ব্যবহারের ক্ষেত্রেও ড্রোনের মতোই নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। জাহাজে অবস্থানকালে হোভারবোর্ড বহন নিষিদ্ধ।

ড্রেসকোড

কিছু সমুদ্রভ্রমণ সংস্থা কঠোরভাবে ড্রেসকোড মেনে চলে। যেমন, আপনি যদি কুনার্ড জাহাজে ভ্রমণ করেন তবে তাদের আনুষ্ঠানিক ও সমারোহপূর্ণ রাতের পোষাকের নিয়ম অনুযায়ী পুরুষদের কালো স্যুট ও টাই বা রাতে জ্যাকেট এবং নারীদের আকর্ষণীয় বা ককটেল গাউন পড়তে হয়।

এমনকি তাদের কম আড়ম্বরপূর্ণ রাতের জন্যও পুরুষদের টাই ছাড়া জ্যাকেট পরতে হয়। কঠোর নিয়ম মানে তারা।

সন্তানপালনকারী মা-বাবার করণীয়

অনেক পরিবারই জাহাজ ভ্রমণে অনেক মা-বাবা তাদের সন্তানের নিয়ে যান, এটাই স্বাভাবিক কিন্তু উপযুক্ত তথ্য-কাগজ পত্র দেখাতে হবে।

নিরাপত্তা অনুশীলনে বাধ্যবাধকতা

জাহাজে উঠার পর যাত্রা শুরু হবে। এরপর সকল যাত্রীকে নিরাপত্তা অনুশীলনে অবশ্যই অংশগ্রহণ করতে হবে। যা কিনা মানাটা বাধ্যতামূলক। কারণ, জরুরি অবস্থায় যাত্রীদের করণীয় কী, তার ধারণা থাকা প্রয়োজন।

জাহাজের বারান্দায় চড়া নিষিদ্ধ

সত্যি বলতে এটা সবচেয়ে প্রাথমিক ও জরুরি নিয়মের একটি। অনেক যাত্রী আছেন, যারা এই কাজটি করে থাকেন। এই কাজটি করা থেকে বিরত থাকতে হবে। এটি নিরাপত্তার জন্য খুবই জরুরি।

জীবন নিয়ে উক্তি