অবৈধ অভিবাসীদের জন্য কুয়েত সরকারের সাধারণ ক্ষমার সময়সীমা ১৭ জুন শেষ হবে।স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ সূত্রে জানা যায়, এখন পর্যন্ত ৩৫ হাজার প্রবাসী সাধারণ ক্ষমার সুযোগ গ্রহণ করেছেন। দেশেটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, বিভিন্ন দেশের সর্বমোট ১ লাখ ২০ অবৈধ অভিবাসী রয়েছে।

প্রবাসী বাংলাদেশি যাদের বৈধ আকামা নেই এবং পাসপোর্টের মেয়াদ নেই এ রকম প্রায় ৪ হাজার বাংলাদেশি প্রবাসী বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে আউট পাস সংগ্রহ করেছেন। এছাড়া অনেকেই যাদের আকামা নেই, পাসপোর্টে মেয়াদ আছে তারা টিকিট করে দেশে চলে গেছে পুনরায় নতুন ভিসায় আসবেন এই আশায়।

কুয়েত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রেসিডেন্সি অ্যাফেয়ার্স জেনারেল ডিপার্টমেন্টের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার ইউসেফ আল-আয়ুব ঘোষণা করেছেন, আবাসন আইন লঙ্ঘনকারীদের গ্রেফতারে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করবে।

অবৈধ অভিবাসীদের যারা কাজ ও থাকার জায়গা দেবে তাদের বিদেশি আইনের ১২ ধারায় ৬ মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৬০০ কুয়েতি দিনার পর্যন্ত জরিমানা করা হবে।

এছাড়া যে সব ব্যক্তি ভুয়া কোম্পানি খুলে শ্রমিক এনে কাজ না দিয়ে ছেড়ে দিয়েছে, সেই সব কোম্পানি বন্ধ করে দেওয়া হবে। বাস, বিলবোর্ড, সুপার মল জনসমাগম স্থানে ব্যাপক প্রচারণা চালাচ্ছে অবৈধ অভিবাসীরা সাধারণ ক্ষমার সুযোগ গ্রহণ করতে।

ঈদের ছুটি ও সাধারণ ক্ষমা এক সঙ্গে হওয়াতে কয়েকগুণ বেড়েছে বিমান ভাড়া। এই সুযোগে এয়ারলাইন্সগুলোও হাকিয়ে নিচ্ছে বাড়তি ভাড়া যার ফলে বিপাকে পড়েছে ঈদের ছুটি ও সাধারণ ক্ষমায় দেশে যাওয়া প্রবাসীরা। কুয়েত সরকার অবৈধ অভিবাসীদের জন্য ক্ষমার সময়সীমা ১৭ মার্চ থেকে ১৭ জুন বেঁধে দিয়েছে।

মা নিয়ে উক্তি