কিছু বাস্তব ঘটনা সিনেমাকেও হার মানায়। নিমিষেই যে ঘটনায় থমকে যায় মানুষের ভাবনার সন্তরণ। তেমন একটা ঘটনাই ঘটেছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে।

৩১ বছর বয়সী এক মা ও তার নির্দিষ্ট সময়ের আগে জন্মানো শিশু অলৌকিকভাবে মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে গেছেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ওই মা ও শিশু দু’জনেই মৃত্যুর খুব কাছাকাছি ছিলেন। ওই মা ছিলেন বড় ধরনের হৃদরোগে আক্রান্ত।

ভারতীয় নারী মারিয়াম মোহদ কালিম সিদ্দিকিকে দুবাইর ইন্টারন্যাশনাল মডার্ন হাসপাতালে ২৬ মে ভর্তি করা হয়েছিল। তিনি ছিলেন ২৭ সপ্তাহের অন্তঃসত্তা। সেই সাথে ভুগছিলেন উচ্চ রক্তচাপে (১৮১/১১০)।

চিকিৎসকেরা জানান, উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে আসার ১০ মিনিট পরই মরিয়ম গুরুতর হৃদরোগে আক্রান্ত হন। এ বিষয়ে মরিয়মের বড় বোন সাদিয়া খালিজ টাইমসকে বলেন, ‘আমার বোনের হার্ট অ্যাটাক হয়। তার হার্টের ক্রিয়া ৩০ মিনিটের বেশি সময় ধরে বন্ধ ছিল।’

এ পরিস্থিতিতে মরিয়মের রক্ত সঞ্চালনের ব্যবস্থা সচল রাখতে আধা ঘণ্টা ধরে সিপিআর (কার্ডিওপালমোনারি রিসাসিটেশন) চালিয়ে যান চিকিৎসকেরা। সেই সঙ্গে প্রয়োগ করেন রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখার ওষুধ। একপর্যায়ে মরিয়মের সফল অস্ত্রোপচার হয়। অস্ত্রোপচারে সন্তান প্রসবের পর মরিয়মকে আইসিইউ (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) থেকে পোস্টকার্ডিয়াক অ্যারেস্ট কেয়ারে স্থানান্তর করা হয়েছে।

মরিয়মের জন্ম দেওয়া ‘অলৌকিক’ নবজাতকের নাম রাখা হয়েছে মুসা। জন্মগ্রহণের সময় শিশু মুসার ওজন ছিল ১ কেজি ৩০০ গ্রাম। তাকে নবজাতক নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে (এনআইসিইউ) রাখা হয়েছে।

জীবন নিয়ে উক্তি