ফল খেয়ে মুখ পুড়ল পর্যটকের। পোড়া যন্ত্রণায় জ্ঞান হারানোর মতো অবস্থা হয় ব্রিটেনবাসী (United Kingdom) যুবকের। মেক্সিকোয় (Mexico) বেড়াতে গিয়ে রাস্তার ধারে বিক্রি হওয়া অচেনা ফল কিনে খাওয়ায়ই কাল হয়। এর পরই লঙ্কাকাণ্ড ঘটে যায়! জ্বলে পুড়ে খাক মুখ। ঘটনার পর মাস খানেক কাটলেও এখনও আতঙ্কে যুবক।

২৮ বছর বয়সি থমাস হ্যারল্ড ওয়াটসন মাস খানেক আগে মেক্সিকোয় বেড়াতে যান। গত ১ মে ক্যামপাচের রাস্তায় হাঁটতে বেরিয়েছিলেন। তখনই চোখে পড়ে রাস্তার পাশের লোভনীয় ফলের দোকানে। সেখানে ‘কাজু আপেল’ নামের একটি ফলও বিক্রি হচ্ছিল। আসলে একটি বাদাম জাতিয় ফল। সেটি খাবার যোগ্য জানার পরেই চেখে দেখেন। তখনই ঘটে যায় অনভিপ্রেত ভয়ংকর কাণ্ড। থমাসের ভাষায়, “জানতাম কাজু আপেলের স্বাদ হালকা তেতো। এই ফলের সম্পর্কে শুনেছিলাম কিন্তু কখনও খাইনি। এদিন কিনে ফেলি এবং রাস্তায় হাঁটতে হাঁটতে কামড় বসাই।”

থমাস জানান, ফলে কামড় দেওয়ার পরেই কিছু বোঝেননি। কয়েক সেকেন্ডের বাদে মুখ পুড়ে যাওয়ার মতো অনুভূতি হয়। তীব্র যন্ত্রণায় জ্ঞান হারানোর মতো অবস্থা হয় তাঁর। পরদিন সকালে উঠে তো চমকে যান এক্কেবারে। দেখেন, গোটা মুখের ভিতরটা ঝলসে গিয়েছে। যেন মারাত্মক অ্যাসিড দিয়ে ঠোঁট, জিভ, গাল পুড়িয়ে দিয়েছে কেউ। প্রশ্ন হল, ফল খেয়ে এমনটা কেন হল?

নিজেই উত্তর খুঁজে পেয়েছেন থমসন। গুগল সার্চ করে জানতে পারেন, কাজু বাদামের মতো ওই ফলে কারডোল এবং আনাকার্ডিক অ্যাসিড রয়েছে। যা ত্বকের সংস্পর্শে এলে ফোস্কা পড়তে পারে। অনভ্যস্ত মুখে গোলমাল বেশি হয়েছে। সেই কারণেই পুড়ে গিয়েছে মুখ। বিদেশি ফল খেতে গিয়ে এভাবে মুখ পোড়ায় থমসনের পরামর্শ, নিজের এলাকার চেনা ফল খাওয়াই নিরাপদ।

জীবন নিয়ে উক্তি