১৫ দিনের মধ্যেই ভারতের বিহার রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ১০টি সেতু ধসে পড়েছে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে রাজ্যটির পানি সম্পদ বিভাগের ১৬ প্রকৌশলীকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বিহারের পানি সম্পদ বিভাগের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিহারের উন্নয়ন সচিব চৈতন্য প্রসাদ জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে রাজ্য সরকার খুবই সতর্ক। তিনি আরও বলেন, সেতু ধসে পড়ার ঘটনায় যেসব ঠিকাদার জড়িত তাদের খুঁজে বের করে জবাবদিহিতার আওতায় আনা হবে।
গতকাল বৃহস্পতিবার বিহারের সারান জেলায় ১০ম সেতু ভেঙে পড়ে। এ নিয়ে ২৪ ঘণ্টায় জেলায় তৃতীয় সেতু ধসের ঘটনা ঘটল।

১০টি সেতু ধসে পড়ার এলাকাগুলোর মধ্যে রয়েছে- সিওয়ান, সারান, মধুবনি, আরারিয়া, পূর্ব চ্যামপারান এবং কৃষাণগঞ্জ জেলা। উপমুখ্যমন্ত্রী সম্রাট চৌধুরী বলেন, গত বুধবার মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার একটি বৈঠকের আয়োজন করেন। এতে পুরাতন সেতু চিহ্নিত করে সেগুলো দ্রুত মেরামতের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

এদিকে রাষ্ট্রীয় জনতা দলের নেতা তেজস্বী যাদব অবশ্য অভিযোগ করেছেন, গত ১৮ জুন থেকে বিহারে ১২টি সেতু ভেঙে গেছে। তিনি আরও অভিযোগ করেন, গত ১৮ জুন থেকে বিহারে ১২টি সেতু ভেঙে পড়ার ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার একেবারেই নীরব। দুর্নীতিমুক্ত সরকার এবং জনবান্ধন সরকারের এবার কী হলো প্রশ্ন রাখেন তিনি।

মা নিয়ে উক্তি