কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনাকে কখনো হারাতে পারেনি ইকুয়েডর। এবার সেই রেকর্ড ভাঙার সুযোগ ছিল তাদের সামনে। কিন্তু তা কাজে লাগাতে পারেনি দল। চলমান কোপার প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে টাইব্রেকারে ৪-২ ব্যবধানে ইকুয়েডরকে হারিয়ে সেমিফাইনালে পা রাখলো আর্জেন্টিনা।

শুক্রবার (৫ জুলাই) টেক্সাসের হিউস্টনের এনআরজি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায় মাঠে নামে দুই দল। ম্যাচের ৩৫ মিনিটে পাওয়া গোলে এগিয়ে ছিল কোপা আমেরিকার বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। প্রথমার্ধ শেষে আর্জেন্টিনা এগিয়ে থাকলেও ম্যাচের শেষ মুহূর্তে যোগ করা সময়ের ২ মিনিটে খেলায় ১-১ ফিরে ইকুয়েডর।

কোপা আমেরিকার নিয়ম অনুযায়ী ফাইনাল ছাড়া নকআউট পর্বের কোনো ম্যাচেই অতিরিক্ত সময় নেই। এতে নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে শেষ হওয়ায় ম্যাচটি তাই সরাসরি গড়ায় টাইব্রেকারে।

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার হয়ে টাইব্রেকারে প্রথম শটই মিস করেন লিওনেল মেসি। বল ক্রসবারে মারেন। আর্জেন্টিনার গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্টিনেজ অবশ্য ইকুয়েডরের প্রথম শটটিও ঠেকিয়ে দেন। এরপর দ্বিতীয় শটটিও ঠেকিয়ে টাইব্রেকারে আবারও ‘অতিমানব’ হয়ে ওঠেন মার্তিনেজ। ইকুয়েডরের হয়ে প্রথম দুটি শট নেয়া অ্যাঞ্জেল মেনা এবং অ্যালান মিন্দার শট ঠেকান মার্টিনেজ। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ৪-২ গোলের জয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে আর্জেন্টিনা।

শনিবার (৬ জুলাই) আর্লিংটনে কোপার দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হবে কানাডা ও ভেনিজুয়েলা। বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায় মাঠে গড়াবে ম্যাচটি। এই ম্যাচে জয়ী দলই শেষ চারে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ হবে। সে হিসেবে নিজেদের শক্তি বিবেচনায় তুলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষ পাচ্ছে মেসির দল।

বর্তমান পারফরম্যান্স বিচারে কানাডার বিপক্ষে জয় পেতে পারে ভেনিজুয়েলা। আর শেষ আটের এই লড়াইয়ে জিতলেই সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনা হবে প্রতিপক্ষ। যদি কানাডা জিতে যায় তবে প্রতিপক্ষ হিসেবে ১০ জুলাই প্রথম সেমিফাইনালে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের মুখোমুখি হতে হবে। যা টুর্নামেন্টে দুই দলের দ্বিতীয় সাক্ষা‍‍ৎ হবে।

মা নিয়ে উক্তি