এয়ার ট্যাক্সি আসলে কম সময়ে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করতে সাহায্য করে। অনেকটা হেলিকপ্টারের মতো দেখতে এই এয়ার ট্যাক্সিতে সর্বাধিক পাঁচ জন বসতে পারেন। সামনে চালকের আসনে থাকবে গিয়ার।

ব্যস্ত সময়ে রাস্তায় বেড় হলেই জ্যাম। ঘণ্টার পর ঘণ্টা কেটে যায় ট্রাফিক জ্যামে আটকিয়েই। তবে এই অপেক্ষা এখন অতীত হতে চলেছে। রাস্তার জ্যাম এড়াতে এবার আকাশেই উড়বে ট্যাক্সি।

শীঘ্রই সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাণিজ্য নগরী দুবাইয়ে চালু হতে চলেছে এয়ার ট্যাক্সি। বিশ্বের প্রথম এয়ার ট্যাক্সি চালু করতে যাচ্ছে জেবি এভিয়েশন। এই স্টার্টআপ সংস্থা সংযুক্ত আরব আমিরশাহির সঙ্গে হাত মিলিয়ে এয়ার ট্যাক্সি পরিষেবা চালু করার ঘোষণা করেছে।

২০২৫ সালের শুরুতেই দুবাইয়ে এয়ার ট্যাক্সি পরিষেবা চালু হতে চলেছে। এরপর ভারতেও চালু হবে এয়ার ট্যাক্সি। আর এই ট্যাক্সির সবথেকে বড় সুবিধা হল এর জন্য বিমানবন্দরে যেতে হবে না। এয়ার ট্যাক্সির ভাড়াও বিমানের টিকিটের তুলনায় অনেক কম।

এয়ার ট্যাক্সি আসলে কম সময়ে দীর্ঘ দূরত্বের পথ পার হতে সাহায্য করে। অনেকটা হেলিকপ্টারের মতো দেখতে এই এয়ার ট্যাক্সিতে সর্বাধিক ৫ জন বসতে পারেন। সামনে চালকের আসনে থাকবে গিয়ার।

দুবাইয়ের পরই ভারতেও চালু হবে এয়ার ট্যাক্সি। ইন্টগ্লোব এভিয়েশন এবং আর্চার এভিয়েশন যৌথ উদ্যোগে ভারতে এয়ার ট্যাক্সি পরিষেবা শুরু করতে চলেছে।

আগামী ২০২৬ সাল থেকেই দিল্লির কনৌট প্লেস থেকে গুরুগ্রাম পর্যন্ত এয়ার ট্যাক্সি পরিষেবা শুরু হতে পারে। ৩১ কিলোমিটার দীর্ঘ এই রাস্তা সড়কপথে পার করতে যেখানে ন্যূনতম ১ ঘণ্টা সময় লাগে, সেটাই এয়ার ট্য়াক্সিতে চেপে পৌঁছে যাওয়া যাবে মাত্র ৭ মিনিটে।

একবার চার্জে ১৫০ কিলোমিটার যেতে পারে এয়ার ট্যাক্সি। দিল্লির পর মুম্বই ও বেঙ্গালুরুতেও এয়ার ট্যাক্সি চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে।

দিল্লি থেকে গুরুগ্রাম পর্যন্ত এয়ার ট্যাক্সির এক পিঠের ভাড়া ২ থেকে ৩ হাজার টাকা হতে পারে।

জীবন নিয়ে উক্তি