ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইশতিয়াক আরিফ শুক্রবার বলেছেন, প্রতিরক্ষামূলক পোশাক পরে কেউ জীবন্ত রাসেল ভাইপার ধরতে পারলে তাকে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে।

এদিকে রাসেলস ভাইপার সাপ নিয়ে জরুরি নির্দেশনা দিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী ডা. সামান্ত লাল সেন। পিটিয়ে মারা নয়, রাসেলস ভাইপার ‘জীবিত’ ধরলে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেন তিনি।

জীবিত রাসেল ভাইপার সাপ ধরে নিয়ে যেতে পারলে পুরস্কার পাবেন, এ আশায় একটি রাসেলস ভাইপার সাপের বাচ্চা ধরেছেন রেজাউল নামে এক যুবক। শুধু তাই নয়, সাপটি নিয়ে তিনি চলে আসেন ফরিদপুর প্রেস ক্লাবে।

শনিবার রাতে রেজাউল সাপটি নিয়ে প্রেস ক্লাবে আসেন। রেজাউলের বাড়ি শহরতলীর আলিয়াবাদ ইউনিয়নের কাদেরের বাজার এলাকায়। রেজাউল পেশায় কৃষক তবে মাছ ধরার কাজও করেন।

রেজাউল জানান, দুই দিন আগেও তিনি একটি রাসেলস ভাইপার সাপ মেরেছেন। বিকালে মাছ ধরতে গিয়ে এ সাপটি দেখতে পান। পরে তোয়ালে দিয়ে পেঁচিয়ে সাপটিকে ধরে ফেলেন।

এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে রেজাউল জানান, স্থানীয়দের কাছে জেনেছেন, জীবিত রাসেল ভাইপার সাপ ধরতে পারলে ফরিদপুরের নেতারা পুরস্কার দেবেন। এ কারণেই মূলত জীবিত সাপটি ধরেছেন তিনি।

মা নিয়ে উক্তি