অস্ট্রেলিয়ার কাছে ডি/এল মেথডে হারের পর ভারতের বিপক্ষে ৫০ রানের পরাজয়। দুই ম্যাচে দুই হারের পর বাংলাদেশের বিদায় অনেকটাই নিশ্চিত। কিন্তু, কিছু গাণিতিক হিসাব আর প্রত্যাশা এখনও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টিকিয়ে রেখেছে টাইগারাদের সেমিফাইনালের স্বপ্ন।

ওয়ানডে বিশ্বকাপে ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দাঁড়িয়ে একা হাতে লড়াই করে আফগানদের জেতা ম্যাচ হারিয়ে দিয়েছিলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। টি-টোয়েন্টিতেও সেই শঙ্কা জাগিয়ে তুলছিলেন ম্যাক্সি। আফগান বোলিংয়ের বিপক্ষে বাকি অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটাররা যেখানে অসহায় আত্মসমর্পণ করছেন; সেখানে দলকে জয়ের পথ দেখাচ্ছিলেন তিনি। তবে এদিন গল্পের শেষটা দেখে আসতে পারেননি ম্যাক্সি। ইনিংসের ১৫ তম ওভারে দলীয় ১০৬ রানে ব্যক্তিগত ৪১ বলে ৫৯ রানের অনবদ্য এক ইনিংসের শেষ হয় ম্যাক্সির। সেই সঙ্গে শেষ হয় অজিদের জয়ের স্বপ্ন। ম্যাক্সিকে ফিরিয়ে ম্যাচে ফেরা আফগানরা শেষমেশ বিশ্বমঞ্চে অজিদের বিপক্ষে পেয়ে যায় প্রথম জয়টা। তাও ২১ রানের ব্যবধানে। আর তাতেই সেমিফাইনাল খেলার সম্ভাবনা টিকে আছে তাদের। ঝুঁকিতে পড়ে গেছে অজিদের সেমিতে খেলা।

শেষ ম্যাচে আফগানিস্তান কিংবা বাংলাদেশের পক্ষে ৪ পয়েন্ট পাওয়া অসম্ভব।

অজিদের জয় মানেই তাই বাংলাদেশের বিদায়। এমন অবস্থায় বাংলাদেশ চাইবে আফগানিস্তানের জয়। সেক্ষেত্রে আফগানিস্তান এবং অস্ট্রেলিয়া দুই দলেরই পয়েন্ট ২। এরপর ভারত অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে দরকার হবে ভারতের জয়। তাতে ভারত ৬ পয়েন্ট নিশ্চিত করলেও অস্ট্রেলিয়া আটকে থাকবে দুইয়ে।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভারত ও আফগানিস্তান জেতার পর, বাংলাদেশকে জিততে হবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে। সেটাও বড় রানের ব্যবধানে। তাহলেই সমান দুই পয়েন্ট হবে আফগানিস্তান, অস্ট্রেলিয়া এবং বাংলাদেশের। সেখান থেকে রানরেটের সাহায্যে বাংলাদেশ যেতে পারে সেমিতে।

মা নিয়ে উক্তি