জনসংখ্যার ভারসাম্য ফিরিয়ে আনতে বিভিন্ন অপরাধী ও আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করেছে কুয়েতের স্থানীয় প্রশাসন। তারই অংশ হিসেবে ১৭ জুন দেশটির বিনেদ আল-গার এলাকায় আবাসন ২০ নাম্বার খাদেম ফ্রি ভিসাধারী শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত প্রবাসীদের শ্রম আশ্রয় কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। পরবর্তীতে তাদের বিরুদ্ধে আইননুসারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানা গেছে।

কুয়েতের শ্রম আইনে এক মালিকের ভিসায় আসার পরে অন্য মালিকের কাজ করাকে ফ্রি ভিসা বলা হয়। যেটা স্থানীয় আবাসন আইনের লঙ্ঘন। এই আইন লঙ্ঘনকারীদের জেল জরিমানা ও নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর বিধান রয়েছে।

কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ফ্রি ভিসা নাম দিয়ে স্থানীয় নাগরিকদের লোভ দেখিয়ে ৭ লাখ থেকে ৯ লাখ টাকা মূল্যে বিক্রি করে থাকে এই ভিসা। স্থানীয় নাগরিকদের প্রতি বছর কিংবা দুই বছর পর দেড় লাখ টাকা থেকে আড়াই লাখ টাকা নিদিষ্ট পরিমাণ অর্থ বিনিময়ে পরবর্তী বছরের জন্য আকামা নবায়ন করে দেওয়া হয়। এই ভিসায় আসা প্রবাসীরা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে থাকেন।

বাংলাদেশ কমিউনিটির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান টিটু বলেন, উচ্চ মূল্য দিয়ে ভিসা কিনে বৈধ ভিসা নিয়ে এসে অবৈধ হিসেবে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করার কোনো মানেই হয় না। যে মালিক বা কোম্পানির ভিসায় আসেন একই মালিকের নিকট কাজ করতে প্রবাসীদের প্রতি অনুরোধ করেন তিনি।

মা নিয়ে উক্তি