মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতে আসা প্রবাসীদের ভিসা ইস্যু করার আগে দক্ষতা এবং জ্ঞান পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছে দেশটির শ্রম ও জনশক্তি মন্ত্রণালয়। জনসংখ্যার ভারসাম্যহীনতা ঠিক করার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে কুয়েতে আসার আগে প্রবাসীদের জন্য একটি ‘দক্ষতা যাচাই পরীক্ষা’ নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে দেশটির।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম আল-কাবাসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, নতুন আগতদের ওয়ার্ক পারমিট প্রদান ও নবায়নের শর্ত হিসেবে এই পরীক্ষা নেওয়া হতে পারে। কুয়েতি নাগরিকদের বেকারত্ব দূর করার অংশ হিসেবে প্রবাসী শ্রমিক ও দেশটির নাগরিকদের মধ্যে ভারসাম্য ফিরিয়ে আনতে এ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

দেশটির পাবলিক অথরিটির মহাপরিচালক ড. মুবারক আল-আজমি বলেছেন, আবেদনকারীর চাকরি সম্পর্কে ভালো দক্ষতা এবং জ্ঞান রয়েছে তা নিশ্চিত করতে এ উদ্যোগ। কুয়েত সোসাইটি অব ইঞ্জিনিয়ার্সের (কেএসই) সহযোগিতায় এটি বাস্তবায়ন করা হবে।

কেএসই’র এসব পরীক্ষা প্রথম পর্যায়ে হবে নতুন আগতদের জন্য। এরপর যারা দেশের ভেতরে তাদের ওয়ার্ক পারমিট (আকামা) নবায়ন করতে চান তাদের অন্তর্ভুক্ত করা হবে। ওয়ার্ক পারমিট নবায়নের ক্ষেত্রে তাদের একটি শর্ত দেওয়া হবে। ব্যর্থ হলে ওই ব্যক্তিকে কুয়েত ছেড়ে যাওয়ার জন্য একটি সময় নির্ধারণ করে দেওয়া হবে।

কুয়েতে বর্তমানে আড়াই লাখ বাংলাদেশি প্রবাসী কাজ করছেন। দেশটিতে প্রবাসী শ্রমিকের সংখ্যায় প্রথম অবস্থানে ভারত, দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে মিশর। বাংলাদেশের অবস্থান তৃতীয় হলেও বর্তমানে ভিসা জটিলতার কারণে সহজে কুয়েত প্রবেশ করতে পারছেন না বাংলাদেশিরা। অন্যদিকে করোনায় দীর্ঘদিন ফ্লাইট বন্ধ থাকায় ফিরতে পারেননি অনেক প্রবাসী।