রাজধানী ঢাকার হযরত শাহজালাল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে যাত্রীদের কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য ৬টি আরটি পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে।

আজ ২৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার থেকে এই ল্যাবের কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু আরব আমিরাত থেকে এই ল্যাবের অনুমোদন না মেলায় কোভিড-১৯ টেস্টের কার্যক্রম শুরু করা হয়নি।

মঙ্গলবার বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে গত রোববার বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান জানিয়েছিলেন, ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে শাহজালাল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে বিদেশগামী যাত্রীদের আরটি পিসিআর টেস্ট শুরু হবে।

এয়ারপোর্টে আরটি পিসিআর ল্যাব না থাকার কারণে অনেক দেশ বাংলাদেশ থেকে তাদের দেশে ঢুকতে দিচ্ছিল না।

এ ছাড়া অনেক দেশ বিমানবন্দর থেকে করোনা পরীক্ষা করার পর উড়োজাহাজে ওঠার শর্ত আরোপ করে।

বাংলাদেশের কোনো এয়ারপোর্টে এমন সুবিধা না থাকায় অনেক প্রবাসী দেশে আটকা পড়েন।

ফলে একদিকে প্রবাসীরা বিদেশে তাদের চাকরি নিয়ে উদ্বেগে ছিলেন, অন্যদিকে দেশ বঞ্চিত হচ্ছিল রেমিট্যান্স আয়ের সম্ভাবনা থেকে।

এসব বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে মন্ত্রিসভা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংশ্লিষ্টদের দ্রুত আরটি পিসিআর ল্যাব স্থাপনের নির্দেশ দেন।

এর পরই সাতটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার আরটি পিসিআর ল্যাব বসাতে অনুমোদন দেয় প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

শনিবার রাতে বিমানবন্দরে আরটি পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হয়।

এই ল্যাবের মাধ্যমে অল্প সময়ের মধ্যে করোনার পরীক্ষার ফল পাওয়া সম্ভব।