কাতারের একজন অপরিচিত ও অজ্ঞাত নারীর সামাজিক কাজের ব্যাপক প্রশংসা হচ্ছে অনলাইনে। এই গরমে একজন অসহায় শ্রমিকের জন্য তাঁর ভালোবাসা মুগ্ধ করেছে অনেককে।

সামাজিক মাধ্যমে দেখা গেছে, ওই নারী বাগানের একজন শ্রমিককে খাবার ও ঠান্ডা পানীয় দিতে একটি কফিশপে আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন। ওই শ্রমিক প্রচন্ড গরমে বাইরে কাজ করছিলেন।

একজন ব্যক্তি এই ছবিটি পোস্ট করে মন্তব্য করেছেন, আমার সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে যা, তা হলো, এই সাধারণ কাজ ওই লোকটিকে কতোটা খুশি করেছে।

এমন খাবার পেয়ে ওই শ্রমিক লোকটি নিজের মোবাইল বের করে খাবারের ছবি তুললেন। এ সময় তাঁর মোবাইলে একটি কল আসলে তিনি মোবাইলে হাসতে হাসতে বলছিলেন, ‘আমার কাছে কোনো রিয়াল নেই, অথচ আমি এখন কফিশপে বসে খাচ্ছি।

পোস্টটি অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা এমন মানবিক কাজের জন্য ওই নারীর ব্যাপক প্রশংসা করেন।

একজন মন্তব্যকারী লিখেছেন, এমন অনেক জিনিস আছে যা আমরা সহজ মনে করি কিন্তু সৃষ্টিকর্তার কাছে সেটি মহান।

আরেকজন লিখেছেন, মানুষ ও প্রাণীর প্রতি সহানুভূতি আমাদের ধর্মের অন্যতম নীতি।

কাতারে কিছু সংস্থা ও ব্যবসায়ী আছে যারা প্রচুর গরমে শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করায়। শ্রমিকদের ঠান্ডা পানি, ছাতা বা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বিশ্রামের জায়গার ব্যবস্থা করে না। এমনকি তাদের সাধারণ খাবারও দেয়ালের ছায়ায় বসে খেতে হয়।