উপসাগরীয় দেশ কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রবাসীদের কুয়েত থেকে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যদি না তারা ট্রাফিক লঙ্ঘনের জরিমানা পরিশোধ করে।

উপরন্তু, মন্ত্রণালয় অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সাথে সংযোগ স্থাপন করতে চায় যাতে কুয়েতি ও প্রবাসীদের জন্য সব ধরনের পরিষেবা বন্ধ করা যায় যাদের ট্রাফিক লঙ্ঘন আছে যতক্ষণ না সেই লঙ্ঘনের অর্থ প্রদান ও লেনদেন সম্পন্ন হয়।

অনেক উপসাগরীয় দেশে এই ধরনের পরিষেবা দেওয়া হয়।

আরবি দৈনিক আল রাই জানিয়েছে, ট্রাফিক বিভাগ কুয়েতি নাগরিক ও প্রবাসীদের দ্বারা সংগৃহীত ট্রাফিক লঙ্ঘন সংগ্রহের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ ঠামার আল আলীর কাছে এই প্রস্তাব জমা দেওয়ার কথা ভাবছে, যা লক্ষ লক্ষ দিনার অনুমান করা হয়।

এখানে বিপুল সংখ্যক লঙ্ঘনকারী কারাগারে আছেন অথবা মারা গেছেন, এছাড়াও বিপুল সংখ্যক প্রবাসীরা স্থায়ীভাবে দেশ ত্যাগ করেছেন।

সূত্র জানায়, সংগ্রহের জন্য স্থল, সমুদ্র ও বিমান বন্দরে বিশেষ কার্যালয় স্থাপন করে ট্রাফিক জরিমানা না দিয়ে প্রবাসীদের দেশ ছেড়ে যাওয়া রোধ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও, ডেটা সংযুক্ত করা লঙ্ঘনকারী যানবাহনকে স্থলবন্দর ত্যাগ করতে বাধা দেবে, বিশেষ করে যখন লঙ্ঘনকারী কুয়েতি নাগরিকদের ভ্রমণ থেকে বিরত রাখার কোন আইন নেই।

ট্রাফিক বিভাগ লঙ্ঘন জারি হওয়ার সাথে সাথেই লঙ্ঘনকারীদের ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে পাঠ্য বার্তা পাঠানোর সম্ভাবনা পরীক্ষা-নিরিক্ষা করছে, যাতে তাদের অবহিত করা হয় এবং জানা যায় যে কোন ধরনের লঙ্ঘন এবং কতটা জরিমানা।

যাতে তাকে তা জমা হতে না দিয়ে অবিলম্বে অর্থ প্রদান করা উচিত।