মালয়েশিয়ায় অ’বৈধভা’বে সি’গারে’ট তৈরি ও পা’চারে’র দা’য়ে বাংলাদেশীসহ আটক ৩

এশিয়া মহাদেশের অন্যতম উন্নত দেশ মালয়েশিয়ায় সি;গারে;ট, ;গুল তৈরী করে শুল্ক ফাঁ;কি দিয়ে বি;ক্রি এবং পাচার সি;ন্ডিকি;টের দুই বাংলাদেশিসহ ৩ সদস্যকে গ্রে;ফতার করেছে দেশটির শু;ল্ক বিভাগ।

গত রোববার থেকে ধাপে ধাপে পরিচালিত দেশটির সি;ম্পাং পুলাই এবং বন্দর সেরি বোটানীর দুটি চত্বরে সেন্ট্রাল জোন রয়্যাল মালয়েশিযার শু;ল্ক বিভাগ (জেপিডিএম), ইউনিট ২ এর দুটি অভিযানে এসব মা;দ;ক পাচার সি;ন্ডি;কেটের সদস্যদের গ্রে;ফতার করে। বুধবার (৯ জুন) দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা বারনামা এ তথ্য জানিয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে একজন বাংলাদেশি মালয়েশিয়ান খেতাব প্রাপ্ত ;দাতু এবং একজন মালয়েশিযান দা;তুক সেরিও রয়েছে। ধৃতরা হচ্ছে- দাতুক সেরি সাঊদ বিন ইবরাহিম (মালয়েশিয়ান), দাতু আজম ও নূরুল আমিন। এদের মধ্যে একজন বাংলাদেশি মালয়েশিয়ান স্ত্রী রয়েছে। তার সহযোগিতায় সি;গারে;ট, গু;ল সহ তা;মাকজা;ত প;ন্য উৎ;পাদন করে ভ্যাট ছাড়া বাংলাদেশি, ভারত ও নেপাল প্রবাসীদের কাছে বিক্রি করা হত।

সেন্ট্রাল জোন এনফোর্সমেন্ট অ;পা;রেশ;নস ডিরেক্টর রামেলি আহমদ জানান, সিম্পাং পুলাই এবং বন্দর সেরি বোটানীর দুটি চত্বরে অ;ভিযা;ন চালিয়ে ৩,৩৭১.৮৬ কিলোগ্রাম (কেজি) চিবুক (তামাক) আটক করে। যার মূল্য ২১১,৫৮৭৮৭.৯৮ রিঙ্গিত।

প্রথম অভিযানে জেডিডিএমকে পাওয়া যায় বেশ কয়েকটি সা;দা তামাকের বস্তা ২,০৫২.১৬ কেজি ওজনের তামাক এবং দ্বিতীয় অভিযানে আরও ১,৩৯৯.৭০০ কেজি তা;মাক পাওয়া গেছে।

শুল্ক কর্মকর্তা বুধবার ১০ জুন এক বিবৃতিতে বলেছেলেন, সিন্ডিকেটটি তামাক প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং প্যাকিং করার জন্য ব্যবহৃত করতো বলে মনে করা হয় এমন ১২,৫০০ রিঙ্গিত মূল্যবানের বেশ কয়েকটি মেশিনও জ;ব্দ করেছে এবং আরও তদন্তের জন্য প্রথম অভিযানে ওই দুই বাংলাদেশি ম্যানেজারকে গ্রে;ফতা;র করে শুল্ক বিভাগ।

গ্রে;ফতারকৃ;তদের বিরুদ্ধে শুল্ক আইন ১৯৬৭৬৭ এর ১৩ ১৩ (১) (ডি) ধারায় আরও তদন্ত করা হচ্ছে। অ;পরাধ; প্র;মা;নিত হলে তাদের বিরুদ্ধে ৫ বছর থেকে সর্বোচ্চ ৭ বছরের কা;রাদ;ন্ড হতে পারে বলে জানান শু;ল্ক কর্মকর্তা।

তিনি আরো বলেন, তাছাড়া প্রথম আ;টককৃ;ত তামাকের এর প্রকৃত মুল্যের প্রায় দশগুন এবং ২য় অভিযানে আটক তামাক মুল্যের প্রায় ২০ গুন জরিমানা হতে পারে।