সৌদি হজের বিষয়ে বাংলাদেশকে যা জানিয়েছে

সৌদি আরবের হজ ও ওমরা বিষয়ক মন্ত্রী ড. আব্দুল ফাত্তাহ্ সোলায়মান মাশাতের সাথে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বৈঠক করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) মক্কায় অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে রাষ্ট্রদূত জাবেদ পাটোয়ারী আসন্ন হজ-২০২১ এর প্রস্তুতির বিষয়ে হজ মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি জানান, বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বর্তমান করোনা পরিস্থিতির হ্রাস-বৃদ্ধি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

তাছাড়া বিভিন্ন দেশে করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হওয়ায় ভ্যাকসিন গ্রহণসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন সাপেক্ষে বহিঃবিশ্ব থেকে হজ করার বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করা হচ্ছে। খুব শিগগিরই এ বিষয়ে সৌদি সরকারের সিদ্ধান্ত জানানো সম্ভব হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের দীর্ঘদিনের বন্ধুপ্রতিম সম্পর্ক ও সহযোগিতার কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানান। এ সম্পর্ক উত্তরোত্তর আরো ঘনিষ্ঠ ও দৃঢ় হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

রাষ্ট্রদূত ২০২০ সালের হজে বাংলাদেশের জন্য অতিরিক্ত ১০ হাজার হজযাত্রীর কোটা প্রদান এবং ২০১৯ সালে মক্কা রোড সার্ভিসের মাধ্যমে ৫০ শতাংশ হজযাত্রীর সৌদি আরবের ইমিগ্রেশন ঢাকাস্থ হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে সম্পন্ন হওয়ায় হজ মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

সৌদি আরবে হজ ও ওমরা পালনের জন্য বাংলাদেশ থেকে প্রতি বছর বিপুল সংখ্যক মানুষ সৌদি আরবে যান। বিগত বছরগুলোতে হজ ও ওমরা পালনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া হজযাত্রীদের পাশাপাশি এর সাথে সরকারি-বেসরকারি সংশ্লিষ্ট সবাইকে সৌদি হজ মন্ত্রী ড. আব্দুল ফাত্তাহ্ সোলায়মান মাশাত ধন্যবাদ জানান।