বেশ নাটকীয়তার পর আজ শনিবার (১৩ আগস্ট) এশিয়া কাপের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। ১৭ সদস্যের মূল দলের সঙ্গে স্ট্যান্ডবাই হিসেবে আছেন আরও ৪ ক্রিকেটার। যদিও স্ট্যান্ডবাই খেলোয়াড়দের নামের তালিকা প্রকাশ করেননি নির্বাচকরা। তবে মূল দলে চমক আছে বেশ কয়েকটি।

প্রায় ৩ বছর পর বাংলাদেশ দলে ডাক পেয়েছেন সাব্বির রহমান।

দল ঘোষণার পর সাব্বিরের প্রত্যাবর্তন, এবাদত হোসেনের টি-টোয়েন্টি দলে ডাক পাওয়া ও শরিফুল ইসলামের বাদ পড়ার কারণ ব্যাখ্যা করেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

প্রায় ৩ বছর পর দলে ফেরা সাব্বির প্রসঙ্গে নান্নুর জবাব, ‘সাব্বির অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। টি-টোয়েন্টিতে আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেটে ওর খেলার অভিজ্ঞতা থেকেই দলে নেয়া হয়েছে। আমরা টিম ম্যানেজমেন্টের সবার সঙ্গে আলোচনা করেই সাব্বিরের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কিছু কিছু জায়গায় কিছু খেলোয়াড়কে এভাবে চিন্তা করতে হয়। আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতা দেখতে হয়। যেহেতু এবার আমাদের ইনজুরি সংখ্যা বেশি, এজন্য একজন বাড়তি মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান দরকার।’

যোগ করেন নান্নু, ‘সাব্বিরকে ‘এ’ দলের হয়ে উইন্ডিজে পাঠিয়েছি সেখানে খেলে সে আন্তর্জাতিক আবহ আরেকটু পাবে। সেটা সে জাতীয় দলে কাজে লাগাতে পারবে। সাব্বির ডিপিএলে খুব একটা খারাপ খেলেনি। এরপর তো সে নার্সিংয়ে আছে বাংলাদেশ টাইগার্সে, এরপর ‘এ’ দলে। এই অভিজ্ঞতা তার জন্য বিরাট পাওয়া। এগুলো কাজে লাগিয়ে সে জাতীয় দলে অবশ্যই ভাল করবে।’

জিম্বাবুয়ে সিরিজে ওয়ানডে অভিষেক হওয়া ডানহাতি পেসার এবাদতের দলভুক্তি নিয়ে নান্নু বললেন, ‘এবাদত শেষ বিপিএলে খুব ভাল করেছে। সেই চিন্তা করে ওকে দলে নেয়া হয়েছে। সৌম্য চোখের আড়াল হয়নি। হলে তো ‘এ’ দলের হয়ে উইন্ডিজে পাঠাতাম না। ভবিষ্যতে আমাদের চিন্তায় আছে।’

তবে শরিফুল আর মুনিম শাহরিয়ারকে বাদ দেওয়ার পেছনে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্দিষ্ট কোনো কারণ ব্যাখ্যা করেননি নির্বাচকরা। ‘বিশ্রাম’ দেওয়া হয়েছে বলে জানালেন তারা।