ভারতে হচ্ছে না আইপিএল, নতুন ভেনু আরব আমিরাত -জেনে নিন বিস্তারিত…

আইপিএল আয়োজনের সব প্রস্তুতিই প্রায় সমাপ্ত। সেপ্টেম্বরের ১৯ তারিখ থেকে আরব আমিরাতের মাটিতে শুরু হবে আইপিএলের ১৩তম আসর। করোনার ভ’য়াবহতার কারণে এবার ভারতে অনুষ্ঠিত হতে পারছে না তাদের ঘরোয়া ফ্রাঞ্চাইজি লিগটি। যে কারণে, হতে হয়েছে প্রবাসী।

তবে একটা জিনিস কিন্তু বাকি। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের চূড়ান্ত অনুমোদন এখনও মেলেনি। এছাড়া আর কোনো কিছুই বাকি নেই আইপিএল আয়োজনের বিষয়ে। সবই ফাইনাল হয়েই গেছে।

রোববার আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে সূচিসহ বাকি বিষয়গুলোও চূড়ান্ত হয়ে যাওয়ার কথা। আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল জানিয়ে দিলেন, আইপিএল হবে অনুষ্ঠিত হবে আরব আমিরাতের তিন ভেন্যু দুবাই, শারজা এবং আবুধাবিতে। আট ফ্রাঞ্চাইজির কাছেই রোববারের বৈঠকের পর সবকিছু পরিষ্কার হয়ে যাবে।

সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়গুলো। যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনেই আয়োজন করা হচ্ছে আইপিএল। জানা যাচ্ছে আট ফ্রাঞ্চাইজি প্রতিনিধি পাঠিয়ে আরব আমিরাতের যাবতীয় সুরক্ষা বলয় খুঁটিয়ে দেখবে।

ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা ছাড়াও বাকি কি কি নিয়ম মানতে হবে- তা একবার দেখে নেওয়া যাক

১. কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম : দুবাইয়ের বর্তমান স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী, কোভিড-১৯ নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে পারলে কোয়ারেন্টাইনে থাকার দরকার নেই; কিন্তু রিপোর্ট না থাকলে টেস্ট করাতেই হবে।

২. কোভিড-১৯ টেস্ট : ক্রিকেটারদের ভারত কিংবা নিজ নিজ দেশ ছেড়ে আসার আগে দু’বার করোনা টেস্ট করতে হবে। দুবাই পৌঁছানোর পর আরও দুবার টেস্ট করা হবে। ক্রিকেটার ছাড়াও, সাপোর্ট স্টাফ ও অন্যদের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম বাধ্যতামূলক।

৩. জৈব সুরক্ষা বলয় : প্রতিটি ফ্রাঞ্চাইজিকে তাদের ক্রিকেটারদের জন্য জৈব সুরক্ষা বলয় তৈরি করতে হবে। সীমিত সংখ্যক ব্যক্তি ছাড়া কারও সঙ্গে দেখা বা কথা বলা নিষিদ্ধ।

৪. ডিএক্সবি অ্যাপ : যারা আইপিএল খেলতে আরব আমিরাতে যাবেন, প্রত্যেককে ফোনে এই অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। এটা আরোগ্য সেতু অ্যাপের মতোই। যেখানে সামাজিক দূরত্বের বিধি ছাড়াও যাবতীয় নিয়ম দেওয়া থাকবে।

৫. থাকা ও খাওয়া: ফ্রাঞ্চাইজিগুলো নিজেদেরই হোটেলের ব্যবস্থা করতে হবে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড এক্ষেত্রে ফ্রাঞ্চাইজিগুলিকে সাহায্য করবে। কোন হোটেলে কতটা ছাড় পাওয়া যাবে, তা বোর্ডই জানিয়ে দেবে ফ্রাঞ্চাইজিগুলোকে।

৬. ড্রেসিংরুম বিধি : ড্রেসিংরুমে একসঙ্গে ১৫ জনের বেশি ক্রিকেটারের থাকা চলবে না।