দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পরে আবার রায়হান রাফি পরিচালিত ‘পরান’ সিনেমা দিয়ে দ্বার খুললো পটুয়াখালীর তিতাস সিনেমা হলের। দলে দলে হলে ফিরছে দর্শক। বদলাচ্ছে বাংলা চলচ্চিত্রের ভাষা।

রায়হান রাফি পরিচালিত বিদ্যা সিনহা মিম, শরিফুল রাজ ও ইয়াশ রোহান অভিনীত সিনেমাটি মুক্তির পরে এইবার এসেছে তিতাস সিনেমা হলে। দর্শকদের উপস্থিতি ছিলো আগের তুলনায় অনেকটা বেশি বলে জানান হল কতৃপক্ষ।

তিতাস সিনেমা হলের ম্যানেজার মোতালেব হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন হল বন্ধ ছিলো। দর্শক নেই। এভাবে হল টিকিয়ে রাখাটাও আমাদের কাছে বড় চ্যালেঞ্জের ব্যাপার।

তবে পরান সিনেমা দেখতে আবার হল মুখী হচ্ছে পটুয়াখালীর দর্শকেরা। ভালো সিনেমা হলে দর্শক হলে আসে। এখন পরান চলছে। পটুয়াখালীতে মুক্তির প্রথম দিনেই বেশ সাড়া পেয়েছি আমরা। এরপরে আসবে হাওয়া। আমরা আশা করি এভাবে ভালো কাজ হতে থাকলে আমাদের হল দর্শকে পরিপূর্ণ থাকবে৷

পরানের দর্শক অর্নব চক্রবর্তী জানান, সিনেমা হলে এসে সিনেমা দেখার প্রাকটিস মাঝখানে একেবারেই হারিয়ে গিয়েছিলো। তবে মানসম্মত সিনেমা হলে দর্শক হলে আসবে অবশ্যই। নির্মাতা রায়হান রাফির পরান সিনেমার ট্রেইলার দেখেই ভেবেছিলাম পটুয়াখালীতে সিনেমাটি এলে সবাইকে নিয়ে হলে গিয়ে দেখবো৷ তাই প্রথম দিনেই চলে আসলাম সবাইকে নিয়ে। এরপরে আসছে ‘হাওয়া’। সেটাও দেখতে আসবো।

পরানের দর্শক ও সাংস্কৃতিক কর্মী মৃদুল চক্রবর্তী বলেন, আবারও দলে দলে দর্শক হলে ফিরছে। ফিরবে না কেনো? ভালো কাজ হলে দর্শক সাড়া দিবেই। তবে হলের পরিবেশ আরও আধুনিক করা দরকার। হলের মধ্যে অস্বাভাবিক গরম। দর্শকদের জন্যে সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করা দরকার।

জানা যায়, সিনেমাটি নির্মিত হয়েছে সত্য ঘটনা অবলম্বনে। কোন সেই সত্য ঘটনা? নির্মাতা বিষয়টি পরিষ্কার না করলেও সবাই ধারণা করছেন ২০১৯ সালে আমাদের পার্শ্ববর্তী বরগুনা জেলার বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে স্ত্রী মিন্নির উপস্থিতিতে স্বামী রিফাত শরীফকে কুপিয়ে জখম করার যে ঘটনা, সেই ঘটনা নিয়েই নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি।

পরে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রিফাত মারা যান। এ ঘটনায় মূল আসামি হিসেবে বেরিয়ে আসে নয়ন বন্ডের নাম।

ধারণা করা যায়, মিন্নির চরিত্রে মিম, রিফাত শরীফের চরিত্রে ইয়াশ রোহান এবং নয়ন বন্ডের চরিত্রে অভিনয় করেছেন শরিফুল রাজ।