সম্প্রতি বিয়ের দাবিতে জামালপুর থেকে বরগুনায় এসে অবস্থান নেওয়া সেই তরুণীকে গ্রে;প্তা;র করেছে পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম। আজ শুক্রবার ১৩ মে সকালে তাকে গ্রে;প্তা;র করা হয় বলে জানিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে ওসি জানান, বিয়ের দাবিতে ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া মাহমুদুল হাসানের ভাড়া বাসায় অবস্থান নেওয়া শিখা আক্তার মৌ নামের ওই তরুণীকে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী শুক্রবার সকালে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার ১০ মে বরগুনা আদালতে মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন খান কথিত বিয়ের দাবিতে তাদের পরিবারকে অবরু;দ্ধ করে অবস্থান নেয়ার অভিযোগ করেন ওই তরুণীর বি;রু;দ্ধে।

ওইদিনই বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করেন বরগুনার মূখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মুহাম্মদ মাহবুব আলম। একই সঙ্গে এক সপ্তাহের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলেরও নির্দেশ প্রদান করেন বিচারক।

এ বিষয়ে বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম বলেন, আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণে আদালতের নির্দেশ পেয়ে ওই তরুণীকে শুক্রবার সকালে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগে গত ২৯ এপ্রিল বরগুনার বেতাগী উপজেলার চান্দখালিতে ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া মাহমুদ হাসানের ভাড়া বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থায় নেয় জামালপুরের তরুণী শিখা আক্তার মৌ। ছেলে ও তার বাবা-মা আত্মগোপনে থাকায় স্থানীয়রা ওই বাড়ির তালা ভেঙে একটি রুমে ঢুকিয়ে দেন ওই তরুণীকে।

এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার (৫ মে) রাতে মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন ওই বাড়িতে আসেন

এবং ওই তরুণীকে পুত্রবধূ বানাতে তার পুরানো স্বামীকে তালাকের কাগজ ও অভিভাবকদের নিয়ে আসার শর্ত দেন।