অনাস্থা ভোটে ইমরান খানের প্রধানমন্ত্রিত্ব হারানোর পরই পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ থেকে গণপদত্যাগ করে তার দল তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সদস্যরা।গণপদত্যাগের পর সংসদ অধিবেশে নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের কার্যক্রম শুরু হওয়ার আগেই ওয়াক আউট করেছিলেন তারা। সবমিলিয়ে ইমরানের দলের ১২৩ পার্লামেন্ট সদস্য পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।

তবে সম্প্রতি পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির নতুন স্পিকার পারভেজ রাজা আশরাফ পিটিআই’র পদত্যাগপত্র যাচাই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। জাতীয় পরিষদের সচিবায়ল সূত্র বলছে, পদত্যাগ করা অনেক পিটিআই সংসদ সদস্যের পদত্যাগপত্র নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। অনুমান করা হচ্ছে অনেকের সইও ঠিক নেই। আবার অনেকের পদত্যাগপত্রের ভাষাও নাকি এক।

পাকিস্তানের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ডনের খবর বলছে, পিটিআই ২৫ সংসদ সদস্য নাকি স্পিকারের সাথেও দেখা করতে চেয়েছেন। তারা স্পিকারকে জানাতে চান আসলে তারা কোন পরিস্থিতিতে এই গণ-পদত্যাগে অংশ নিতে বাধ্য হয়েছেন।

এর আগে, অনাস্থা ভোটে ইমরান খানের প্রধানমন্ত্রিত্ব হারানোর পাকিস্তান সংসদে শুরু হয় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের কার্যক্রম। তবে এর ঠিক আগ মুহূর্তেই সংসদ থেকে পদত্যাগ করেন ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সব সংসদ সদস্য।

গণপদত্যাগের পর তারা সংসদ অধিবেশে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের কার্যক্রম শুরু হওয়ার আগেই ওয়াক আউট করেছিকেন। ফলে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে বিরোধী দল পাকিস্তান মুসলিম লীগের (নওয়াজ) প্রেসিডেন্ট শাহবাজ শরীফের জয় পাওয়া এখন সময়ের ব্যাপার হয়ে দাড়ায়।

সূত্র: ডন