দুই ফুট লম্বা নাম রাখেন এক মা গিনেস বুক রেকর্ডসে নাম তুলতে মেয়ের । ১০১৯ বর্ণের নামটি বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বড় নাম। নামটি উচ্চারণ করা প্রায় অসম্ভব। অপরাহ উইনফ্রেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওই মেয়ের মা সান্দ্রা জানান, তিনি বিশ্বরেকর্ড গড়তেই মেয়ের এমন নাম রেখেছেন। তিনি চাননি মেয়ের নাম অন্য কারও সঙ্গে মিলে যাক।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় নামটি ১৯৯৭ সালে প্রথম টিভি অনুষ্ঠানে সম্প্র্রচারিত হয়। যা সবাইকে হতবাক করে দিয়েছিল। যখন সান্দ্রার মেয়ে (ডাক নাম) ‘জেমি’ নিজের নামটি আবৃত্তি করেছিল। আপনি একবার নামটি পড়ার চেষ্টা করতে পারেন!

‘‘Rhoshandiatellyneshiaunneveshenkescianneshaimondrischlyndasaccarnae renquellenendrasamecashaunettethalemeicoleshiwhalhinive’onchellecaundenesh eaalausondrilynnejeanetrimyranaekuesaundrilynnezekeriakenvaunetradevonneya vondalatarneskcaevontaepreonkeinesceellaviavelzadawnefriendsettajessicanneles ciajoyvaelloydietteyvettesparklenesceaundrieaquenttaekatilyaevea’shauwneorali aevaekizzieshiyjuanewandalecciannereneitheliapreciousnesceverroneccalovelia tyronevekacarrionnehenriettaescecleonpatrarutheliacharsalynnmeokcamonaeloies alynnecsiannemerciadellesciaustillaparissalondonveshadenequamonecaalexetiozetia quaniaenglaundneshiafrancethosharomeshaunnehawaineakowethauandavernellchishankcarl inaaddoneillesciachristondrafawndrealaotrelleoctavionnemiariasarahtashabnequcka gailenaxeteshiataharadaponsadeloriakoentescacraigneckadellanierstellavonnemyiatangoneshiadianacorvettinagodtawandrashirlenescekilokoneyasharrontannamyantoniaaquin ettesequioadaurilessiaquatandamerceddiamaebellecescajamesauwnneltomecapolotyoajohny aetheodoradilcyana.’’

জেমির ১০১৯ বর্ণের নামটি কারও পক্ষেই পড়া ততটা সহজ নয়। যা না তিনিই শুধু নির্ভূলভাবে নিজের নামটি গড়গড় করে বলতে পারেন। সান্দ্র্রা জানান, তার মেয়ে জেমির জন্ম হয় ১৯৮৪ সালের ১২ সেপ্টেম্বর। জন্মের পর মেয়ের নিবন্ধনে এই নাম ‘Rhoshandiatellyneshiaunneveshenk Koyaanisquatsiuth Williams’ লিখেছিলেন।

তারপর তারা সিদ্ধান্ত নেন যে, এটি যথেষ্ট দীর্ঘ নয়। তাই তারা একটি সংশোধনী দাখিল করেন নামটি বড় করতে। এরপর ১০১৯ বর্ণের নামটি রাখেন তারা। জানলে অবাক হবেন, জেমির নামটি ২ ফুট লম্বা। মেয়ের নাম রাখার পর সেটি মুখস্ত করাতে বেশ ঝক্কি পোহাতে হয় সান্দ্রাকে। একটি টেপে নামটি রেকর্ড করে বারবার শুনিয়ে মেয়েকে ১০১৯ অক্ষরের নামটি মুখস্ত করান মা।

জেমির মতে, তার নামটি সবার চেয়ে আলাদা। নামের কারণেই সবার কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন তিনি। যদিও অপ্রাহ উইনফ্রের শো পর্বটি ১৯৯৭ সালে প্রচারিত হয়েছিল। তবে বিশ্বের দীর্ঘতম নাম সম্পর্কিত এই ভিডিওটি ২০১৯ সালে অনলাইনে ভাইরাল হয়। এটি তখন থেকেই অনলাইনে ঘুরে বেড়াচ্ছে। মজার বিষয় হলো, বিশ্বের দীর্ঘতম নামের গিনেস রেকর্ডটি একজন জার্মান ব্যক্তি রবার্ট ব্লেইনের দ্বারা সেট করা। তিনি ১৯৯৭ সালে ৮৩ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। তার নামটি ছিলো মোট ৭৪৭টি অক্ষরের।

সূত্র: মিরর/দ্য সান