অবশেষে না ফেরার দেশে চলেই গেলেন জনপ্রিয় অভিনেতা আবদুল কাদের

অভিনেতা আবদুল কাদের আ;র নেই। আজ শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা ২০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অ;বস্থায় শেষ নিঃশ্বা;স ত্যাগ করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার মৃ;ত্যুর খবরটি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন তার পুত্রবধু জাহিদা ইসলাম।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টা থেকেই বাবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। এরপর হাসপাতাল থেকে আমাদের ফোন করে ইমার্জেন্সিতে যেতে বলা হয়। আমরা যাওয়ার পর বাবাকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ)

রাখা হয়। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। অভিনেতার এই পুত্রবধু বলেন, এখন হাসপাতালেই আছেন। পারিবারিকভাবে সবাই সিদ্ধান্ত নেয়ার পর পরবর্তী প্রসিডিউর শুরু করবো।

ব্যাক পেইন নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ভুগছিলেন আবদুল কাদের। উন্নত চিকিৎসার জন্য গেল ৮ ডিসেম্বর চেন্নাইয়ে নিয়ে যাওয়া হয় এই অভিনেতাকে। সেখানকার হাসপাতালেই ১৫ ডিসেম্বর ক্যানসার আক্রান্তের খবর জানতে পারেন তিনি ও তার পরিবার।

শুধু তাই নয়, জানা যায় ক্যানসার চতুর্থ স্তরে। সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়েছে। শা;রী;রিক দু;র্বল;তার কারণে কেমোথেরাপি না দিয়েই আবদুল কাদেরকে ২০ ডিসেম্বর দেশে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নেন তার পরিবার।

দেশে ফিরে এদিনই ভর্তি করানো হয় রাজধানীর বেসরকারি একটি হাসপাতালে। এরপর থেকে সেখানেই চিকিৎসা চলছিলো তার। কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের লেখা ‘কোথাও কেউ নেই’ ধারাবাহিক নাটকে বদি চরিত্রে অভিনয় করে পরিচিতি পান

আবদুল কাদের। নাটক, চলচ্চিত্রের পাশাপাশি বেশ কিছু বিজ্ঞাপনচিত্রেও দেখা গেছে তাকে। থিয়েটারেও সরব ছিলেন তিনি। তার উল্লেখযোগ্য মঞ্চনাটক পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়, এখনও ক্রীতদাস, তোমরাই, স্পর্ধা, দুই বোন।