দুবাই, আবুধাবীসহ ৪ আন্তর্জাতিক রুটে নতুন বছরে ফ্লাইট পরিচলনা করবে ইউএস-বাংলা

নতুন বছরের শুরুতে আরও ৪ আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা করবে দেশের বেসরকারি উড়োজাহাজ সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। নতুন এই গন্তব্যেগুলো হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই, আবুধাবী, শ্রীলঙ্কার কলম্বো ও মালদ্বীপের মালেতে ফ্লাইট।

রোববার সন্ধ্যায় কক্সবাজারে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ক্যা;প্টেন শিকদার মেজবাহউদ্দিন আহমেদ এসব তথ্য জানান। সংস্থার মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম এবং কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

সিইও বলেন, আগামী বছরের শুরুতে মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম গন্তব্য দুবাই ও আবুধাবিতে ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে সার্কভুক্ত দেশ শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলোম্বো এবং মালদ্বীপের রাজধানী মালেতেও ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউএস-বাংলা। এ লক্ষ্যে ইউএস-বাংলার বিমান বহরে আরো দুটো বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ যুক্ত করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আগামী বছর থেকে ইউএস-বাংলা যশোর- কক্সবাজার, সিলেট-চট্টগ্রাম, সিলেট-চট্টগ্রাম রুটে ফ্লাইট চালাবে। সেজন্য আরো দুটি এটিআর ৭২-৬০০ উড়োজাহাজ আনা হচ্ছে। আগামী জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারির মধ্যেই সেগুলো ইউএস বাংলার বহরে যুক্ত হবে।

মেজবাহউদ্দিন বলেন, ‘সারা বিশ্ব আজ কো;ভিড ১৯ ম;হামারিতে বি;প;র্য;স্ত। সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে বিশ্ব আজ বি;ধ্ব;;স্ত। সর্বপ্রথম ক;রোনাভাইরাসের ক;রা;ল গ্রা;;সে এভিয়েশন অ্যান্ড টুরিজম ইন্ডাস্ট্রিজ চ;রমভাবে ক্ষ;তি;গ্র;স্ত হয়েছে। সারাবিশ্বের আকাশপথ অনেকটা ল;কডাউন অবস্থায় ছিল। গত ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাস থেকে এভিয়েশন ইন্ডাস্ট্রিজ ক্ষ;;তি;র স;ম্মুখীন হয়েছে। জুন-জুলাই পর্যন্ত প্রায় সকল ধরনের আকাশ পথের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ ছিল। বর্তমানে স্বল্প পরিসরে আন্তর্জাতিক রুটগুলোতে নানাবিধ স্বা;স্থ্যবিধির নি;র্দেশনা মেনে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করে অন্যান্য এয়ারলাইলের ন্যায় ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সও।’

“বিশেষ করে অ্যারোনটিক্যাল ও নন-অ্যারোনটিক্যাল চার্জকে সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসা, জেট ফুয়েলের দাম আন্তর্জাতিক মা;নদণ্ডে নিরুপণ করা, প্যাসেঞ্জার এয়ারলাইন্সের জন্য হ্যা;ঙ্গার সুবিধা ইত্যাদি।”

সিইও বলেন, ‘গত ২৮ অক্টোবর থেকে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে এয়ার বল চুক্তির অধীনে আমরা ঢাকা থেকে কলকাতা ও চেন্নাই এবং চট্টগ্রাম থেকে চেন্নাই রুইফ্লাইট পরিচালনা শুরু করেছি। গত ১৭ নভেম্বর থেকে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের অন্যতম গন্তব্য সিলেট থেকে সপ্তাহে দু’টি ফ্লাইট মাস্কাটে পরিচালনা শুরু করেছে ইউএস-বাংলা। বর্তমানে ঢাকা থেকে কলকাতা, চেন্নাই ছাড়াও মাস্কাট, দোহা, সিঙ্গাপুর, কুয়ালালামপুর ও গুয়াংজু রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এছাড়া চট্টগ্রাম থেকে মাস্কাট, দোহা ও চেন্নাই রুটে ফ্লাইট পরিচালনা অব্যাহত রেখেছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।’

সংবাদ সম্মেলনে করোনা মোকাবিলায় ইউএস বাংলার সহায়তার কার্যক্রম তুলে ধরে মেজবাহউদ্দিন বলেন, করোনা ম;হামারির শুরুর দিকে সারাদেশে ডাক্তারদের সুরক্ষার জন্য পি;পিই, হ্যান্ড গ্লা;ভস, মা;স্ক, স্যা;নিটাইজার, ই;নফ্রারেড থা;র্মোমিটারসহ স্বাস্থ্য সু;র;ক্ষা;র জন্য বিভিন্ন চিকিৎসা সামগ্রী ঢাকা মেডিকেল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল, বারডেমসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ও বিভিন্ন আ;ইন শৃং;খ;লা র;ক্ষা;কা;রী বা;হি;নী;কে উপহার হিসেবে দিয়েছে ইউএস-বাংলা কর্তৃপক্ষ।

ক;রোনাভাইরাস ম;হামারীর মধ্যে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স যে পরিমাণ আর্থিক ক্ষ;তি;র মু;খে পড়েছে, তা কা;টি;য়ে আগের অবস্থায় ফিরে আসতে আরও দুই বছর সময় লাগতে পারে বলে এক প্রশ্নের জবাবে জানান সিইও।

২০১৪ সালে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বহরে বর্তমানে চারটি বো;য়িং ৭৩৭-৮০০, ছয়টি এটিআর ৭২-৬০০ উড়োজাহাজসহ মোট ১৩টি এ;য়ারক্রাফট রয়েছে। আকাশ যাত্রা