ভারতকে এবার তিন গুণ ইলিশ দিবে বাংলাদেশ

কো;ভিড-১৯ এর কারণে ভারত-বাংলাদেশ সী;মান্ত পেরিয়ে আসা-যাওয়া প্রায় ব;ন্ধই বলা চলে। এদিকে ২০১৯ সালের মতো এবারও পূজার মৌসুমে ভারতের জন্য ইলিশ রফতানির দরজা খুলছে বাংলাদেশ সরকার। এমনই খবর জানিয়েছে ভারতীয় জনপ্রিয় বাংলা সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা।

আনন্দবাজার জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতেই বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ইলিশ রফতানি-সংক্রান্ত অ;নুমতিপত্র সংশ্লিষ্ট সং;স্থাগুলোর হাতে এসেছে। ভারতের রাজধানী দিল্লি থেকে ‘স্যা;নিটারি ই;মপোর্ট পা;রমিট’ আদায় করে মাছ খুব দ্রু;ত এ ভারতে ইলিশ আমদানির তো;ড়জোড় চলছে।

ঐ নি;র্দেশিকা অনুযায়ী, পূজা উপহার হিসেবে ১০ অক্টোবরের মধ্যে ১৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশ পাঠানো যাবে। ২২ অক্টোবর, দুর্গাপূজার সপ্তমী।

২০১৯ সালের মৌসুমে ৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ পাঠানোর ছা;ড়পত্র মিলেছিল। ২০২০ সালে মোট নয়টি সং;স্থাকে কম করে ১৫০ মেট্রিক টন করে ইলিশ রফতানির অ;নুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মৎস্যমন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিংহ ১১ সেপ্টেম্বর বলেছেন, নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া মে;নে ইলিশ আনতে সব রকম সহযোগিতা করছে রা;জ্য।

পশ্চিমবঙ্গের দ্বিতীয় ক্ষুদ্রতম জেলা হাওড়ার পাইকারি মাছ কারবারি সংগঠনের ক;র্তা সৈয়দ আনোয়ার মাকসুদ আনন্দবাজারকে জানিয়েছেন, মাঝে শুক্রবার বাংলাদেশে ও রোববার ভারতে ছুটি। বা;ধা কা;টিয়ে আগামী সপ্তাহেই ইলিশ আমদানির চে;ষ্টা চলছে।

সৈয়দ আনোয়ার মাকসুদ জানান, পেট্রাপোল সী;মান্ত দিয়েই ইলিশ ঢু;কে কলকাতা, হাওড়া ও শিলিগুড়ি যাবে। এখন এক কেজি-১২০০ গ্রামের বড় ইলিশের মূল্য কমবেশি ১৩০০ টাকা। পদ্মার ইলিশের মূল্য তার আশপাশেই থাকবে বলে ধারণা পশ্চিমবঙ্গের ইলিশ ব্যবসায়ীদের।

তথ্য সূত্র: আনন্দবাজার